আমাদের প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার কারণে সাধারণ মানুষ ফ্রিল্যান্সিং মানেই বুঝে: পার্ট টাইম ইনকাম, ডাটা এন্ট্রি, ক্লিক করে আয় ইত্যাদি । আমাদের মিডিয়াগুলো পরিপূর্ণভাবে না জানার কারণে তারা ফ্রিল্যান্সিং কে জাষ্ট  এক্সট্রা ইনকামের একটা ওয়ে হিসেবে প্রচার করে ।

তাই যখনই কেউ শুনে যে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করেন তখন ভেবে নেয় যে আপনি ডাটা এন্ট্রি বা এই রকম টুক টাক কিছু কাজ করে কোন রকমে কষ্টে বিষ্টে মাসে হাজার ১০/২০ হাজার টাকা ইনকাম করেন ।

কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং হল একটা পরিপূর্ণ প্রফেশন । লাইফটাইম প্রফেশন । ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, ল’ইয়ার, সরকারী চাকরী ইত্যাদির মত একটি পরিপূর্ণ পেশা । একজন ফ্রিল্যান্সার অন্য পেশা বা চাকরীর  চাইতে অনেক অনেক বেশী  ইনকাম করতে পারে । একজন ভাল কাজ জানা ফ্রিল্যান্সার অনায়াসেই মাসে ৫/১০ লাখ টাকা ইনকাম করে । কিন্তু সামাজিক স্বীকৃতি নাই । বিয়ের বাজারে চৌধুরী সাহেব সহজে রাজী হতে চায় না ।

সমাধান কি ?

প্রথমেই নিজের পরিচয় সঠিকভাবে দিন । মনে করুন ফ্রিল্যান্সিং নামে দুনিয়াতে কিছুই নেই ।  আপনি আসলে ফ্রিল্যান্সার না । আপনি একজন আই.টি প্রফেশনাল, অথবা গ্রাফিক ডিজাইনার , অথবা ওয়েব ডেভেলপার । আপনি কাজটি দেশের কোন কোম্পানীতে না করে আমেরিকার কোন কোম্পানীতে করছেন ।

খুব সিম্পলি নিজের পরিচয় দিন এইভাবে :

”আমি আমেরিকান বা অমুক দেশের একটা কোম্পানীতে ডিজিটাল মার্কেটার হিসেবে জব করি । অনলাইনে ঘরে বসে কাজ করি এবং তারা আমাকে প্রতি মাসে আমার ব্যাংক একাউন্টে সেলারী ট্রান্সফার করে ।”

ওয়ার্ক ফ্রম হোমের সাথে এখন সবাই পরিচিত । যার ফরে প্রশ্নকর্তা অনলাইন সম্পর্কে একদম অভিজ্ঞ না হলেও এটা বুঝবে যে অনলাইনের মাধ্যমে বিদেশী কোম্পানীতে কাজ করা যায় ।

এইভাবে সামাজিকভাবে আপনার পরিচয় বললে মানুষ খুব সহজে বুঝতে পারবে যে:

১. আপনি যেহেতু বিদেশী কোম্পানীতে কাজ করেন তাই আপনি অবশ্যই অনেক বেশী যোগ্যতা সম্পন্ন ।

২. বিদেশী কোম্পানীতে ভাল সেলারী । স্বাভাবিকভাবে আপনার ইনকাম দেশের কোম্পানীতে চাকরী করা ছেলেদের চেয়ে বেশী ।

৩. আপনি বাংলাদেশের আরো দশটা ছেলের চাইতে অনেক বেশী চৌকশ ও মেধাবী ।

৪. আপনি আপনার এলাকার একজন আইকনিক ফিগারে পরিণত হতে পারবেন এবং সবাই আপনার এক্সজাম্পল দিবে ।

সত্যিকার অর্থেই আমরা ফ্রিল্যান্সিং করি না ।  ফ্রিল্যান্সিং হল ইচ্ছা হলে করলাম ইচ্ছা হলে করলাম না । তার মানে খুব সিরিয়াস না ।  কিন্তু আমরা খুবই সিরিয়াস

 কিন্তু আমরা এটাকে পরিপূর্ণ পেশা হিসেবে বিদেশী কোন কোম্পীতে স্থায়ী চাকরী করি ।

এমনকি বিদেশী কোন বায়ারকে যদি আপনি পরিচয় দেন যে আপনি ”ফ্রিল্যান্সার” তবে সে আপনার উপর স্বাভাবিকভাবেই আস্থা রাখতে পারবে না । কারণ সে মনে করবে আপনি তার কাজটি খুব গুরুত্বের সাথে করবেন না  ।

সুতারং নিজেকে পরিচয় দিন আমি ডিজিটাল মার্কেটোর বা গ্রাফিক ডিজাইনার বা ওয়েব ডেভেলপার বা অন্যান্য । এবং বলুন যে আপনি বিদেশী কোম্পানীতে চাকরী করেন। এটা ১০০% সত্য । ফাইভার , আপওয়ার্ক, আমেরিকা বা ইউরোপের বড় বড় কোম্পনী সবাই বিদেশী কোম্পানী ।

সুতরাং এতদিন আপনি যদি নিজেকে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে পরিচয় দিয়ে থাকেন  এটা ভুল ছিল ।  এখন থেকে সঠিকভাবে নিজের পরিচয় ‍দিন । চৌধুরী সাহেবরা আপনার পিছনে লাইন ধরবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *